Friday, May 20, 2022

শীতের আকর্ষণ খেজুরের রস ও খেজুর গুড় জঙ্গলমহল জেলগুলিতে

JJM NEWS DESK:কুয়াশা-ঢাকা শীতের সকালে টাটকা এক গ্লাস খেজুরের রসের তুলনা হয় না। এই মধুবৃক্ষ থেকে আহৃত রস কাঁচা ও জ্বাল দিয়ে খেতে যেমন সুস্বাদু, তেমনি এ রস দিয়ে তৈরি গুড় ও পাটালিরও তুলনা নেই। শীতে হাড়কাঁপানো ঠান্ডার মধ্যে কাঁচা খেজুরের রস আহহ, এক কথায় অমৃত! শীতের পিঠে-পায়েসের একটি উপাদেয় উপাদান খেজুরের রস। এই রসে তৈরি দানা, ঝোলা ও নলেন গুড়ের স্বাদ ও ঘ্রাণই আলাদা।

খেজুরের রস বা খেজুর রস হল খেজুর গাছ থেকে সংগ্রহকৃত রস। সাধারণত মাটির হাড়ি দিয়ে খেজুরের রস সংগ্রহ করা হয়। তবে বর্তমানে অনেক ক্ষেত্রে মাটির বদলে প্লাস্টিক দিয়ে সংগ্রহ করা হয়। খেজুরের রস দিয়ে ফিরনি, পায়েস এবং খেজুরের রস থেকে উৎপন্ন গুড় দিয়ে ভাঁপা পিঠা এবং গাঢ় রস দিয়ে তৈরি করা হয় মুড়ি, চিড়া, খই ও চিতই পিঠাসহ হরেক রকম পিঠাপুলি। খেজুরের রস পান করলে শরীরের দুর্বলতা দূর হয়। এতে উচ্চ প্রাকৃতিক চিনি এবং অন্যান্য প্রাকৃতিক উপাদান বর্তমান।

শীতের আকর্ষণ খেজুরের রস ও খেজুর গুড় জঙ্গলমহল জেলগুলিতে

কুয়াশা-ঢাকা শীতের সকালে টাটকা এক গ্লাস খেজুরের রসের তুলনা হয় না। মধুবৃক্ষ থেকে আহৃত রস কাঁচা ও জ্বাল দিয়ে খেতে যেমন সুস্বাদু, তেমনি এ রস দিয়ে তৈরি গুড় ও পাটালিরও তুলনা নেই। শীতে হাড়কাঁপানো ঠান্ডার মধ্যে কাঁচা খেজুরের রস আহহ, এক কথায় অমৃত!

আরো পড়ুন : সম্পর্কে যেসব লক্ষণ দেখা দিলে ব্রেকআপ করা জরুরি

শীতের পিঠে-পায়েসের একটি উপাদেয় উপাদান খেজুরের রস। এই রসে তৈরি দানা, ঝোলা ও নলেন গুড়ের স্বাদ ও সুবাসই আলাদা।
শুরু হয়ে গিয়েছে পৌষ মাস। বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্যে খেজুরের চাহিদা বাড়বে। পৌষ পার্বণে বিভিন্ন ধরনের পিঠা, পুলি, পায়েস তৈরি ক্ষেত্রে খেজুর গুড়ের চাহিদা থাকবেই থাকবে।
লক ডাউনের ফলে অনেক চাষির কাজ বন্ধ ছিল। এবার তাই নতুন উদ্যোমে চাষিদের মধ্যে ব্যাপক তৎপরতা দেখা যাচ্ছে। প্রতিদিনই খেজুরের রস সংগ্রহ করার পর গুড় তৈরির কাজ করছেন অসংখ্য চাষি এবং তাঁদের পরিবারের লোকজন।
শীতে খেজুরের রস সংগ্রহের জন্য বিশেষ পদ্ধতিতে গাছ কাটেন গাছিরা। খেজুরগাছ থেকে রস বের করার উপযোগী করে কাটা শুরু হয় হেমন্তের প্রথমেই। প্রথম গাছ কাটার পর দ্বিতীয়বার চাঁছ দিয়ে সেখানে বসানো হয় কঞ্চির বিশেষভাবে তৈরি নলি। তার পাশে বাঁশের তৈরি ছোট শলাকা পোঁতা হয় ভাঁড় (কলস) টাঙানোর জন্য। চোখ বেয়ে নলি দিয়ে খেজুর গাছের রস পড়ে ভাঁড়ে। খেজুরগাছ কাটা ও তা থেকে রস বের করার মধ্যেও কিছু কৌশল থাকে । ভালো করে গাছ কাটতে কিংবা রস বের করতে পারেন না অনেকেই ।

আরো পড়ুন : WhatsApp : হোয়াটসঅ্যাপের ডিলিট হওয়া মেসেজ পড়তে চান? জেনে নিন ট্রিকস

শীতের আকর্ষণ খেজুরের রস ও খেজুর গুড় জঙ্গলমহল জেলগুলিতে

কখন, কিভাবে, কোনখানে কেমন করে কাটতে দিতে হবে এবং যার ফলে গাছ মারা যাবে না, অথচ বেশি রস পাওয়া যাবে তা একজন দক্ষ গাছিই ভালো জানেন। একবার গাছকাটার পর ২-৩ দিন পর্যন্ত রস সংগ্রহ করা হয়। প্রথম দিনের রসকে স্থানীয়ভাবে বলা হয় জিরেন। এ জিরেন রস স্বাদে ও মানে অনন্য। জিরেন রস দিয়ে তৈরি হয় উন্নত মানের গুড় ও পাটালি। দ্বিতীয় দিনের রসকে বলা হয় দোকাট এবং তৃতীয় দিনের রসকে বলা হয় তেকাট । যা দিয়ে তৈরি হয় ঝোল গুড়। রসের জন্য একবার কাটার পর ৫-৬ দিন বিরাম থাকে কাটা জায়গা শুকানোর জন্য।

শুকিয়ে গেলে আবার রস সংগ্রহ চলে। এ সময় সুমিষ্ট, সুগন্ধে মৌ মৌ করে চারদিক। এর সুবাস আর স্বাদে ভিড় জমাতে থাকে পিঁপড়া, মৌমাছি, পাখি ও কাঠবিড়ালি।পূর্ব বর্ধমান জেলার বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষজন খেজুরের রস ও গুড় দিয়ে তৈরি করেন নানা ধরনের পিঠা, পায়েস। বানানো হয় নানা ধরনের পাটালি। লক ডাউনের কবলে পড়ে খেজুরের রস বা খেজুরের গুড় বন্ধ হলেও এই বছরে থাকবে ব্যাপক চাহিদা এমনটাই আশা করছেন গাছিড়া সহ খেজুরের রস ও গুড় প্রিয় মানুষজন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

লেটেস্ট খবর

লেটেস্ট খবর

হাতির খবর

জঙ্গলমহল ভ্রমণ