Saturday, August 20, 2022

Nihar:ঐতিহ্যবাহী নীহার সংবাদপত্রের ১২০তম বর্ষপূর্তি উদযাপন ও আলোচনাসভা

নিজস্ব সংবাদদাতা: অবিভক্ত কাঁথি মহকুমার প্রথম সংবাদপত্র ঐতিহ্যবাহী ‘ নীহার ‘ -এর ১২০তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় মঙ্গলবার হেঁড়িয়া শিবপ্রসাদ ইনস্টিটিউশনের আনন্দভবন সভাকক্ষে। অবিভক্ত মেদিনীপুরের অন্যতম প্রাচীন ইতিহাস চর্চার সারস্বত প্রতিষ্ঠান ‘ হিজলী-কাঁথি ইতিহাস রচনা সমিতি’র উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন খেজুরী-নন্দীগ্ৰাম-ভবগানপুর এলাকার বহু গুণীজন।

সভায় সভাপতিত্ব করেন মেদিনীপুর আঞ্চলিক ইতিহাস চর্চাকেন্দ্রের সভাপতি মন্মথনাথ দাস। সভার প্রথমে নীহার সংবাদপত্র ও প্রেসের প্রতিষ্ঠাতা মধুসূদন জানাসহ আয়োজক সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা দুই সদস্য বরেণ্য ইতিহাসকার মহেন্দ্রনাথ করণ ও যোগেশচন্দ্র বসুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান, পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন ও ধূপ জ্বেলে শ্রদ্ধা জানান উপস্থিত অতিথিগণ। মেদিনীপুরের স্বাধীনতা সংগ্ৰামে নীহার সংবাদপত্র ও সম্পাদক মধুসূদন জানার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে আলোচনা করেন অমৃত মাইতি, পৃথ্বিরাজ প্রধান, নীলেন্দু বাগ, বিমান নায়ক, অজিত জানা প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ধীরেন্দ্রনাথ প্রধান, রাজকুমার খাটুয়া, অশেষ মাইতি, রাজকুমার খাটুয়া প্রভৃতি। নীহার সংবাদপত্রের ১২১তম জন্মদিনটি পালন করা হয় কেক কেটে। কেক কাটেন অমৃত মাইতি ও মন্মথনাথ দাস। ‘ভারতীয় সংবাদপত্রের সেকাল -একাল’ বিষয়ক এক প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন ড. প্রবালকান্তি হাজরা ও বিমান নায়ক।

সংগ্ৰাহক মধুসূদন জানা ও সুদর্শন সেনের এই সংবাদপত্র বিষয়ক প্রদর্শনীতে ভারতীয় নানান ভাষার সংবাদপত্র ও দু:ষ্প্রাপ্য সমাচার দর্পণ, সংবাদ প্রভাকর, আনন্দবাজার, স্বাধীনতা প্রভৃতি সংবাদপত্রগুলি দেখে অতিথিরা বিষ্ময় প্রকাশ করেন। সমগ্ৰ অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনায় ছিলেন ড. বিষ্ণুপদ জানা। আয়োজকদের পক্ষে সুমন নারায়ন বাকরা ও সুদর্শন সেন জানান, মেদিনীপুরের সংস্কৃতিতে সুদীর্ঘ প্রায় নয় দশক ধরে ঐতিহ্যবাহী এই নীহার সংবাদপত্রের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। বিস্মৃতপ্রায় এই সংবাদপত্রের ঐতিহ্যকে বর্তমান প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতেই আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি। মঙ্গলবারই সন্ধ্যায় ছিল মেদিনীপুর চর্চা পরিবারের উদ্যোগে ভার্চুয়ালি আলোচনাসভা। এই সভায় নীহার সংবাদপত্র নিয়ে আলোচনা করেন বিশিষ্ট গবেষক ড. শ্যামল বেরা, সম্পাদক মধুসূদন জানা সম্পর্কে ড. কালীপদ প্রধান ও নীহার সংবাদপত্রে দাঁতন প্রসঙ্গ বিষয়ে আলোকপাত করেন সন্তু জানা। সঞ্চালনায় ছিলেন অমিত সাহু ও সুদর্শন সেন।

প্রসঙ্গত, ১৯০১ খ্রীষ্টাব্দের ১৭ আগষ্ট কাঁথির সুবিখ্যাত নীহার প্রেস থেকে পাক্ষিক সংবাদপত্র রূপে মধুসূদন জানার সম্পাদনায় এই নীহার সংবাদপত্র প্রথম প্রকাশিত হয়। উল্লেখ্য, প্রথম চারটি সংখ্যা পাক্ষিক রূপে প্রকাশিত হলেও পরবর্তী পঞ্চম সংখ্যা থেকে ১৯৮৯ খ্রী: পর্যন্ত প্রায় নীরবিচ্ছিন্নভাবে এই সংবাদপত্র প্রকাশিত হয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

লেটেস্ট খবর

লেটেস্ট খবর

হাতির খবর

জঙ্গলমহল ভ্রমণ